• GOLD এবং USD/JPY এর মুভমেন্ট নির্ভর করবে আগামী সপ্তাহে FOMC এবং জ্যাকশন হোল সিম্পোজিয়াম মিটিং এর উপর। অবশ্যই শুধু মাত্র আগামী সপ্তাহ্ব FOMC এবং জ্যাকশন হোল সিম্পোজিয়াম ইস্যু, নট দীর্ঘ মেয়াদে।
  • বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়াটা এখনো GOLD এবং  USD/JPY কে মুভ করাবে দীর্ঘ মেয়াদে।
  • GOLD এবং JPY ডলারের বিপরীতে কিছুটা দুর্বল হলেও এখনো ট্রেন্ডে কোন পরিবর্তন আসে নাই। অর্থাৎ ডলারের বিপরীতে এখনো JPY এবং GOLD বাই মোডেই আছে।

গত সপ্তাহে USD/JPY ১০৫.০৪ পর্যন্ত ড্রপ করেছিলো, এবং GOLD হাই টেস্ট করেছিলো ১৫৩৫.০৮ এরিয়া পর্যন্ত। JPY এবং GOLD উভই সপ্তাহের শেষের দিকে কারেকশন করে দুর্বল হয়েছে ডলারের বিপরীতে। যদিও এখন পর্যন্ত GOLD কিংবা USD/JPY কোনটারই ট্রেন্ড চেঞ্জ হয় নাই, যাস্ট কারেক্টিভ মুভ করছে।

সেফ হেভেন হিসেবে JPY এবং GOLD অনেক দিন ধরেই শক্তিশালী হওয়ার পিছনে চিন-আমেরিকার ট্যারিফ ইস্যু, সেন্ট্রাল ব্যাংকগুলির রেট কাট, বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়া, স্টক এবং বন্ড ইয়েল্ড ড্রপ করা দায়ী।

গত কয়েকদিনে GOLD এবং JPY অনেকটাই পাগলা ঘোড়ার মত মুভ করছে। অল্প সময়েই বেশ কয়েকটা বড় বড় স্পাইক দিয়েছে মার্কেটে, বন্ড ইয়েল্ড কার্ভের কারনে। এদিক দিয়ে চিন, আমেরিকাকে দোষারোপ করেছে যে জি-২০ মিটিং এ যেকথা আমেরিকা দিয়েছিলো সেকথা আমেরিকা রাখে নাই। কিন্তু ট্র্যাম্প আবার উলটা সুরে বলেছে চিনের সাথে ট্রেড ওয়ার নিয়ে পজিটিভ কথা বার্তা চলতেছে।

তবে গত সপ্তাহে হুটহাট মার্কেট মুভের পিছনে সবচেয়ে বড় কারন ছিলো ইয়েল্ড কার্ভের। ২ এবং ১০ বছর মেয়াদী বন্ড ইয়েল্ড কার্ভ বিপরীতমুখী অবস্থানে চলে গিয়েছিলো এবং ৩০ বছর মেয়াদী বন্ড চলে এসেছিলো ২.০% এর নিচে।

ডলারের রিটেল সেলস রিপোর্ট প্রায় দ্বিগুন ভালো করেছে আগে থেকে। CPI গ্রোথ ২.০০% এর কাছাকাছি চলে এসেছে যেটা ফেড চাচ্ছে। এবং ইয়ারলি বেশিসে আছে ১.৮%। এবং কোর ইনফ্ল্যাশন আছে ২.২%। রিটেল সেলে আগে থেকে বেড়ে প্রায় দাবল হয়ে গেছে। আগে থেকে বেড়ে হয়েছে ০.৭%। এক কথায় বলতে গেলে গত সপ্তাহে অ্যামেরিকার ম্যাক্রো ইকোনোমিক রিপোর্টগুলি ছিলো অসাম।

ইয়েল্ড কার্ভের কারনে অর্থনৈতিক মন্দার যে ভয় করা হচ্ছিলো সেটা আপাতত হয়তো হচ্ছে না। তবে ট্রেড ওয়ার চলমান থাকলে অর্থনৈতিক মন্দার কবলে পরলে কনফার্ম। সেক্ষেত্রে দীর্ঘ মেয়াদে JPY এবং GOLD দুইটাই শক্তিশালী হয়ে যাওয়ার চান্স অনেক অনেক বেশী। তবে ট্রেড ওয়ার নিয়ে সু-সংবাদ আসলে, এই দুইটা সেফ হেভেনই সবচেয়ে বেশী দুর্বল হবে।

এদিক দিয়ে জাপানের ইকোনোমিক রিপোর্টগুলি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, জাপানের উৎপাদন খাতের রিপোর্টগুলি বেশ ভালো করেছে সাম্প্রতিক সময়। এটাও ছোটখাটো একটা কারন JPY শক্তিশালী হওয়ার। চিন-আমেরিকার ট্রেড ওয়ারের কারনে জাপানের ইকোনোমিক গ্রোথ ও বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। কারন চিনের সাথে মাএরিকার বাণিজ্যিক সম্পর্কটা অনেক বড়।

আর গোল্ডের  ক্ষেত্রে যাহাই ডলারের রিপোর্ট , তাহার বিপরীতই গোল্ডের রিপোর্ট। ডলারের রিপোর্ট ভালো মানে গোল্ডের জন্য খারাপ, আর ডলারের রিপোর্ট খারাপ মানেই গোল্ডের জন্য ভালো। যেহুতু ডলারের রিপোর্টগুলি গত সপ্তাহে ভালো ছিলো, তাই ধ্রেই নিতে হবে গোল্ড ম্যাক্রো-ইকোনোমিক রিপোর্ট খারাপ।

যদিও সেফ হেভেন JPY এবং গোল্ড শুধুমাত্র ম্যাক্রো-ইকোনোমিক রিপোর্টের উপর চলে না, বেশীরভাগই চলে বৈশ্বিক অবস্থার উপর। আর বৈশ্বিক অবস্থা এখনো JPY এবং GOLD এর পক্ষে আছে। যতটুকু দুর্বল হয়েছে, সেটা কারেকশনের কারনে।

আগামী সপ্তাহে যেহুটু ডলারের দুইটা বড় ইভেন্ট আছে, সো সেফ হেভেন দুটির মুভমেন্ট ও এই দুইটা ইভেন্টের উপরেই হবে। FOMC এবং জ্যাকশন হোল সিম্পোজিয়াম থেকে আমরা ইকনোমিক প্রবৃদ্ধি, প্রজেকশন, ইনফ্ল্যাশন, এবং কি পরিমাণ প্রণোদনা প্যাকেজ দিচ্ছে সে সম্পর্কে আইডিয়া পাবো, যেটা আমাদের ডলারের দির্ঘ মেয়াদে ডলারের ট্রেন্ড নির্ধারনে হেল্প করবে। এছাড়াও আগামী সপ্তাহে PMI রিপোর্টগুলির দিকেও আমাদের নজর দেওয়া উচিত, যদিও বড় বড় ইভেন্টের ভিড়ে, PMI রিপোর্টটা হয়তো সাময়িক সময়ের জন্য কাজ করবে, পুরো সপ্তাহর জন্য না।

USD/JPY টেকনিক্যাল এনালাইসিস

USD/JPY

USD/JPY এর বর্তমান রেট থেকে রেসিস্টেন্স আছে ১০৬.৬৫ এরিয়াতে। ১০৬.৬৫ এরিয়া ব্রেক আউট হলে নেক্সট টার্গেট থাকবে ১০৭.১৫ এরিয়াতে। ১০৭.১৫ ব্রেক আউট হলে ফাইনাল টার্গেট ১০৭.৭০। যদি না ট্রেড ওয়ার নিয়ে পজিটিভ কোন নিউজ আসে সেক্ষেত্রে ১০৭.৭০ ব্রেক আউট করতে পারবে না।

অন্যদিকে, বর্তমান রেট থেকে মেজর সাপোর্ট আছে ১০৫.৫০ এরিয়াতে। ১০৫.৫০ ব্রেক আউট হলে নেক্সট টার্গেট ১০৫.০৫ থেকে ১০৫.০০ এরিয়া। এবং ফাইনালি যদি ১০৫.০০ এরিয়া ব্রেক আউট হয় সেক্ষেত্রে ১০৪.৬০ ক্রিটিক্যাল সাপোর্ট এরিয়া টেস্ট করবে।

GOLD টেকনিক্যাল এনালাইসিস

GOLD

বর্তমান রেট থেকে রেসিস্টেন্স আছে ১৫১৭ এরিয়াতে। ১৫১৭ ব্রেক আউট হলে গোল্ড আবার ১৫২৭/২৮ এরিয়া টেস্ট করতে পারে। ১৫২৮ ব্রেক আউট করলে নেক্সট টার্গেট ১৫৩৫ এরিয়া। ইনকেজ ১৫৩৫ এরিয়া যদি ব্রেক আউট করে ফাইনাল টার্গেট হবে ১৫৫০ এরিয়া পর্যন্ত।

অন্যদিকে, বর্তমান রেট থেকে সাপোর্ট আছে ১৫০৩ থেকে ১৫০০ এরিয়াতে। ১৫০০ এর নিচে স্ট্যাবল হলে গোল্ড ১৫৯২ থেকে ১৪৯০ নেক্সট টার্গেট। ১৪৯০ এর নিচে স্ট্যাবল হলে ফাইনাল টার্গেট ১৪৮০ পর্যন্ত। ট্রেড ওয়ার নিয়ে কোন পজিটিভ রিপোর্ট না আসলে ১৪৮০ ব্রেক করতে পারবে বলে মনে হয় না গোল্ড।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here