ইংল্যান্ডের লেবার মার্কেট রিপোর্ট কিছুটা ভালো
USD এর রিটেল সেলস রিপোর্ট রিলিজ হবে ৬.৩০ মিনিটে।
নিক্কি ২২৫ ড্রপ করেছে -০.৬৯%
DAX আপ হয়েছে ০.০৮%

ইংল্যান্ডেত আর্নিং ৩.৫% থেকে বেড়ে হয়েছে ৩.৬%. আজ এশিয়ান এবং ইউরোপীয় সেশনেও ডলার বেশ শক্তিশালী অবস্থায় আছে। তবে ডলারের বিপরিতে সবচেয়ে বেশী দুর্বল হয়েছে পাউন্ড।

হার্ড ব্রেক্সিট হওয়ার চান্স বেশী এমন সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে বলেই পাউন্ড এত দুর্বল। GBP/USD আর্নিং ভালো আসার পরেও ১.২৫০০ এরিয়ার উপরে উঠতে পারে নাই। EUR/GBP গত ৬ মাসের মদ্ধে সর্বচ্চ লেভেলে পৌছে গেছে৷

আর্নিং ৩.৫% থেকে বেড়ে হয়েছে ৩.৬%, ক্লাইমেট কাউন্ট চ্যাঞ্জ ১৮.৯ হাজার থেকে বেড়ে হয়েছে ৩৮ হাজার। আন এমপ্লয়মেন্ট ৩.৮% অই আছে আগের মত।

আগের আর্টিকেলেও বলেছি রিপোর্ট ভালো  বৈ খারাপ বলা যাবে না মোটেই। রিপোর্ট ভালো আসলে কি হবে, পলিটিকাল কারনে মুলত পাউন্ড দুর্বল হচ্ছে। স্পেশালী বরস জনশন প্রধানমন্ত্রীর দৌড়ে এগিয়ে থাকার পর থেকে। কারন বরিশ জনশন বলেই দিয়েছে ৩১ অক্টোবরের মাঝে তারা ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে যাবে সেটা হার্ড ব্রেক্সিটই হোক অথবা সফট ব্রেক্সিট।

আর ইউরোপীয় ইউনিয়ন এখনো কোন ধরনের ডিলের জন্য রাজী না। ফ্রান্স এবং জার্মানি বলেই দিয়েছে ব্রেক্সিট  ইজ ব্রেক্সিট।

এদিক ডয়েচ ব্যাংক এর একটা আর্টিকেল পড়লাম সেখানে তারা বলেছে ইংল্যান্ড যদি কোন ধরনের ডিল ছাড়া ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে যায় তবে  GBP/USD ১.১৫০০ এরিয়া নিমিষেই টেস্ট করে ফেলবে।

এখন পর্যন্ত GBP/USD এর জন্য কমফোর্ট জোন আছে ১.২৪০০ এরিয়াতে৷ ব্রেক্সিট নিয়ে কোন ধরনের আশার বাত্তি না দেখা গেলে অথবা ডলারের রিটেল সেলস রিপোর্ট ভালো আসলে মার্কেট অচিরেই হয়তো ১.২৪০০ এরিয়ার নিচে চলে আসবে। হয়তো মাইনর কোন কারেকশন করতে পারে ১.২৫০০/১.২৫২৫ এরিয়া পর্যন্ত। এবং ডলারের রিপোর্ট খারাপ আসলে বড়জোড় ১.২৬০০/১.২৬১০ পর্যন্ত টেস্ট করার সুযোগ আছে৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here