• ফেড প্রেসসিডেন্ট পওয়েল এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মাঝে বাদানুবাদ।
  • চিন-আমেরিকার মাঝে ট্যারিফের নতুন মাত্রা।
  • আগামী সেপ্টেম্বর মাসে ECB প্রণোদনা দিতে পারে।
  • EUR/USD ক্রিটিক্যাল সাইকোলজিক্যাল লেভেলের কাছাকাছি এরিয়া থেকে উঠে গেছে।

গত সপ্তাহের শেষের দুই দিন ছিলো ফুল অব থ্রিলড। আমিও ছিলাম ছুটিতে গত বৃহস্পতি – শুক্রবার। আইসা দেখি মার্কেটে ব্যাপক বিনোদোন ছিলো। অনেক পিপ্স মিস করছি, আবার আফসোস ও নাই।

যাইহোক, গত শুক্রবার ট্রাম্প টুইটের মাধ্যমে জানিয়েছে কে তাদের আসল শত্রু। ফেডকে চিনের চেয়েও বড় শত্রু বলে মনে করে ট্রাম্প। ট্রাম্প সরাসরি রেট কাটের পক্ষে, কিন্তু ফেড এখনো সেভাবে রেট কাট করছে না। ট্রাম্প গত কয়েকদিন আগেই ১০০ বিপি রেট কাটের কথা বলেছিলো। কিছু ফেড সদস্যও মিনিমাম ৫০ বিপি রেট কাটের পক্ষে। কিন্তু ফেড প্রেসিডেন্ট এমন সারপ্রাইজ রেট কাটের পক্ষে। স্ট্যান্ডার্ড ২৫ বিপি রেট কাটের পক্ষে। এটা নিয়েই বেসিক্যালি ফেড প্রেসিডেন্ট পওয়েলের উপর বেজায় ক্ষেপেছে ট্রাম্প।

আবার ওইদিক দিয়ে চিন আমেরিকার উপর ৭৫ বিলিয়ন ডলাররের ট্যারিফ দিয়েছে, এর তাৎক্ষনিক জবাবে ট্রাম্প ২৫% থেকে ট্যারিফ বাড়িয়ে ঘোষনা দিয়েছে ৩০% করার। এবং আমেরিকান কোম্পানিগুলিকে সরাসরি নির্দেশ নিয়েছে চিনের বিকল্প খুজতে। এক কথায় যদি বলি মার্কেটকে পাগল করে দেওয়ার জন্য যা যা করার দরকার ট্রাম্প – চিন – ফেড মিলে করেছে সবকিছুই।

এত খারাপ খবরের মাঝেও ইউরোর জন্য আশাব্দী খবর ছিলো সেপ্টেম্বরেই প্রণোদনা প্যাকেজ দেওয়ার। এটাএকটা বড় কারন ছিলো ইউরো মেজর সাপোর্ট থেকে উঠে যাওয়ার।

আগামী মাসে ফেডও স্ট্যান্ডার্ড ২৫ বিপি রেট কাট করবে। কিন্তু ট্রাম্পের চাওয়া অনুযায়ী হবে না। ২৫ বিপি রেট কাট করলে ডলারেরে তেমন কোন ক্ষতি হবে না সেফ হেভেন গোল্ড,  জাপানীজ ইয়েন এবং সুইস ফ্র্যাঙ্কের বিপরীতে ছাড়া। সারপ্রাইজ রেট কাট অর্থাৎ যদি ৫০ বা ১০০ বিপি করে তাহলে ডলার প্রায় সকল মেজর পেয়ারের বিপরিতেই দুর্বল হয়ে যাবে। এখন পর্যন্ত ফেড ফান্ড ফিউচারে দেখা যাচ্ছে ৭৫% চান্স আছে এই বছর আরো দুইবার রেট কাটের।

গত শুক্রবার ইউরো বেশ ভালোভাবেই ঘুরে দাঁড়িয়েছে ডলারের বিপরীতে। ডেইলি এবং সাপ্তাহিক ক্যান্ডেল টোটালি বুলিশ ক্যান্ডেল প্রিফার করে। EUR/USD বুলিশের মাত্রা আরো পেত যদি ইতালির প্রধানমন্ত্রী কনটে পদত্যাগ না করতো সালভানির সাথে ঝামেলা করে। আগামী সপ্তাহেই EUR/USD এর এনাফ সুযোগ আছে যদি জার্মানি প্রণোদনা প্যাকেজ কনফার্ম করে। একই সাথে ইতালি ৫০ বিলিয়ন ইউরো এরেঞ্জ করতে পারে বাজেত ঘাটতি পুষাইতে। দুইটা ব্যাপারই খুব কঠিন ব্যাপার না ইউরোজোনের জন্য, কিন্তু স্বদিচ্ছার প্রয়োজন আছে এই। গত সপ্তাহে ফ্রান্সের ম্যানুফ্যাকচারিং এবং সার্ভিস PMI রিপোর্ট দুইটি বেশ ভালো এসেছে। জার্মানির সার্ভিং PMI ভালো আসলেও, ম্যানুফ্যাকচারিং PMI আগের চেয়ে ভালো আসলেও ৫০ এর নিচে। এটা জার্মানির বিজনেসের জন্য ভালো লক্ষন নয় কখনোই।

এদিক, দিয়ে আমেরিকার মার্কিট ম্যানুফ্যাকচারিং PMI  ড্রপ করেছে। কিন্তু FOMC ছিলো আবার হকিশ কারণ লেবার মার্কেট এখনো বেশ শক্তিশালী এবং সারপ্রাইজ রেট কাট হবে না এমন হিন্টস অই দেওয়া হয়েছে ফেডের পক্ষ থেকে। যদিও ট্রাম্পের রাগটাও এই কারনেই। চিওনের সাথে ঝামেলা না মিটলে আমেরিকার ম্যাক্রো ইকোনোমিক রিপোর্টগুলিও খারাপ আসতে পারে আগামী মাসেও। এটা আমেরিকার জন্য অবশ্যই বিপদজ্বনক। ট্যারিফের ঝামেলা না মিটলে সহসাই মার্কেট কন্ডিশন ভালো হবে বলে মনে হয় না। 

আগামী সোমবার আমেরিকার ডিউরেবল গুডস ওর্ডার রিপোর্ট দুটি রিলিজ হবে। এবং জার্মানির আছে IFO বিজিনেস রিপোর্ট। উভয় পক্ষের রিপোর্টই আগে থেকে খারাপ ফোরকাস্ট করে রেখেছে।

আমেরিকা এবং জার্মানি উভয়ের GDP রিপোর্ট ও রিলিজ হবে আগামী সপ্তাহে। একই সাথে ইউরোজোনের কঞ্জিউমার কনফিডেন্স এবং জার্মানির আগস্ট মাসের ইনফ্ল্যাশন রিলিজ হবে। যদিও এই রিপোর্ট কোনটাই দির্ঘ মেয়াদে ডলার কিংবা ইউরোকে হেল্প করবে না। পলিটিক্যাল ইস্যুর সমাধান ছাড়া। ইউরোজোনের বেশ কয়েকটা দেশকে প্রণোদনা দিতে হবে এবং আমেরিকাকে ট্যারিফের ব্যাপারে ছাড় দিতে হবে। নইলে USD লং টার্মে শুধু দুর্বলই হবে। আর EUR এর রিপোর্টগুলি ভালো আসলে বেটার ১.১২০০ থেকে ১.১২৫০ পর্যন্ত বাই মোডে থাকাই বেটার। আর প্রণোদনা প্যাকেজ দিলে ১.১৩৫০ পর্যন্ত বাই মোডে থাকা যেতে পারে। আর প্রণোদনা না দিলে ১.১২২০/১.১২৫০ এরিয়ে ব্রেক আউট করাটাই কঠিন হয়ে যাবে ইউরোর জন্য।

আর ডলারের ট্যারিফ রিলেটেড পজিটিভ রিপোর্ট ছাড়া ডলারকে খুব একটা হেল্প করবে না, ম্যাক্রো ইকোনোমিক রিপোর্টগুলি। দেখা যাভে রিপোর্ট ভালো আসছে ডলারের, ডলার সাময়িক শক্তিশালী হয়েই আবার দুর্বল হয়ে যাবে। এর বেশী হেল্প পাওয়ার কথা না বর্তমান সিচুয়েশনে। এই সিচুয়েশনে আপনি যদি ট্যারিফ রিলেটেড হেড লাইনগুলি সাথে সাথে পান, তাহলে এই সিচুয়েশন আপনার ট্রেডের জন্য বিশাল সুযোগ আছে। আর যদি আপনি ট্যারিফ, প্রণোদনা এগুলি না বুঝেন তাহলে হয়তো আপনার জন্য এই সিচুয়েশন মরন ফাঁদ!

EUR/USD টেকনিক্যাল এনালাইসিস

বর্তমান রেট থেকে মেজর সাপোর্ট আছে ১.১০৮০ এরিয়াতে। ১.১০৮০ এরিয়া ব্রেক আউট হলে নেক্সট টার্গেট ১.১০২৫ এরিয়া পর্যন্ত। ১.১০২৫ এরয়া ব্রেক আউট হলে ফাইনাল টার্গেট ১.০৯৬০/৮০ এরিয়া পর্যন্ত।

অন্যদিকে, বর্তমান রেট থেকে মেজর রেসিস্টেন্স আছে ১.১২২০ এরিয়াতে। ১.১২২০ এরিয়া ব্রেক আউট হলে নেক্সট টার্গেট ১.১২৫০/১.১২৯০ এরিয়া পর্যন্ত। ১,১২৯০ এরিয়া ব্রেক আউট করা কঠিন যদি না খুব বড় এমাউন্টের প্রণোদনা প্যাকেজ দেয়। আর যদি ১.১২৯০ ব্রেক আউট হয়েই যায় তাহলে সর্বচ্য ১.১৩৫০ এরিয়া টেস্ট করতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here