ফরেক্স মার্কেটে সিজনাল ট্রেডের একটা ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। এবং সেপ্টেম্বর মাসে ফরেক্স মার্কেট সবচেয়ে ভালো সিজনাল ট্রেন্ড ফলো করে। আপনি যখন এগুলি নিয়ে চিন্তা করবেন, অনেকগুলি বিষয় সামনে এসে দাঁড়াবে। জুলাই এবং আগস্ট মাসে সেন্ট্রাল ব্যাংক এর তেমন একটা স্টেটমেন্ট থাকে না। কিন্তু সেপ্টেম্বর মাসের শুরু থেকে সেন্ট্রাল ব্যাংক এর একের পর এক স্পীচ, স্টেটমেন্ট চলতেই থাকে।

সো আপনি যদি ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিসে ভালো হয়ে থাকেন, সেপ্টেম্বর মাস আপনার জন্য বেশ ভালো একটা সুযোগ ক্রিয়েট করে দিবে প্রফিটের জন্য।

আগস্ট মাসে হেজ ফান্ড ম্যানেজাররাও তাদের প্রফিট তেক করে ফেলে, সেপ্টেম্বর থেকে তারা আবার নতুন করে এন্ট্রি নেওয়া শুরু করে। যেকারনে আগস্ট মাসের শেষের দিন মার্কেট অনাকাংখিত অনেক বড় মুভ করে। গত সপ্তাহে EUR/USD এর মুভমেন্ট হতে পারে এর সবচেয়ে বড় উদাহারন। সো সেপ্টেম্বরেই হেজ ফান্দ ম্যানেজারেরা ইয়ার এন্ডিং এন্ট্রিগুলি নিবে। সো মার্কেট কিছুটা অপরিচিত আচরন করতে পারে, যদি ফান্ডামেন্টাল না বুঝেন।

যদিও সিজনাল ট্রেড ফরেক্স মার্কেটের একটা গুরুত্বপুর্ন পার্ট, কিন্তু মনে রাখতে হবে এটা ছাড়াও মার্কেটে এই মাসে ECB, FED, BOC এর মনিটারি পলিসির পাশাপাশা ট্যারিফ ইস্যু এবং ব্রেক্সিট পুরোপুরি বিদ্যমান।  যেকোন মুহুর্তে ট্যারিফ এবং ব্রেক্সিট হেড লাইনগুলি সিজনাল ট্রেডিইং মেথডকেও অকার্যকর করে দিতে পারে।  

১। ওয়েলের দুর্বল হওয়া

সেপ্টেম্বর মাসে আমেরিকা তেল উত্তোলন বাড়িয়ে দেয়। যেকারনে ওয়েল প্রাইজ আগস্ট এর শেষের দিক থেকে কমা শুরু করে। ওয়েল প্রাইজ যদিও এখনো অনেক কম রেটে আছে। যেকারনে আমাদের উচিত হবে যেকোন ওয়েল ইনভেন্টরিস রিপোর্টে যদি ওয়েল শক্তিশালী হয়ে যায় সেক্ষেত্রে রেসিস্টেন্স থেকে সেলে থাকা। মার্কেট ওপেন হওয়ার সাথে সাথে সেলে থাকবেন ব্যপারটা আবার কিন্তু এমন না। মার্কেট কোন নিউজে টাইনা উঠছে, যাস্ট রেসিস্টেন্স থেকে সেলে থাকেন।  

অন্যদিকে, ন্যাচারাল গ্যাস আবার অয়েলের উলটা দিকে যায়। আপনার ব্রোকারে যদি ০.০১ এ ওয়েল এবং ন্যাচারাল গ্যাস ট্রেড করা যায় তাহলে আপনি এই সুবিধাটা নিতে পারেন। কারন মেজতিড়ি ব্রোকারে এই দুইটা ছোট লটে ট্রেড করা যায় না। ০.০১ এ ওয়েল ট্রেড করতে এক্সনেসে একাউন্ট করতে পারেন। এক্সনেসে একাউন্ট করতে ক্লিক করুন এখানে।  

২. স্টক মার্কেট এবং CAD দুইটাই দুর্বল হয়

সেপ্টেম্বর মাস আমেরিকান স্টন মার্কেট এবং CAD উভয়ের জন্যই খারাপ। ১৯৯০ সাল থেকে যে ৪টা মাসে স্টক মার্কেট ড্রপ করে সেপ্টেম্বর তাদের মাঝে একটা। আমেরিকান স্টক ড্রপ করলেও সেটা CAD এর উপর নেগেটিভ প্রভাব ফেলে। আর সেপ্টেম্বরে যেহুতু ওয়েল প্রাইজ ও ড্রপ করে সেকারনে CAD দুর্বল থাকে সেপ্টেম্বরে বেশীরভাগ সময়।

৩. CHF দুর্বল হয়ে যাওয়া

সেপ্টেম্বরে যদিও CHF দুর্বল হয় USD এর বিপরীতে। যদিও মাসের শেষের দিকে এটার প্রভাব আমরা বেশ ভালো ভাবেই দেখেছি। কিন্তু CHF যেহুতু সেফ হেভেন, আর মার্কেটে বেহ কিছু পলিটিক্যাল ইস্যুও আছে CHF কে শক্তিশালী করে দেওয়ার জন্য। আমার মতে CHF না ধরাই উচিত। কারন সেপ্টেম্বর মাসে SNB ইন্টারভেন বেশী করে CHF এর উপর। যেকারনে CHF দুর্বল হয়। কিন্তু এখন যে পলিটিক্যাল সিচুয়েশন চলতেছে এটা CHF সেফ হেভেন হিসেবে শক্তিশালী হওয়ার পক্ষে। তবে একটা কাজ করা যেতে পারে সেটা হলো, যখনই পলিটিক্যাল ক্লোন নিউজে USD/CHF ড্রপ করবে, তখনই বাই মোডে থাকা হবে সবচেয়ে নিরাপদ।

৪. গোল্ড সেপ্টেম্বরে দুর্বল থাকে

গত কয়েক মাসে গোল্ড বেশ শক্তিশালী হয়েছে। আর সেপ্টম্বরে এমনিতেই গোল্ড দুর্বল থাকে। সো গোল্ড কারেকশনে যাওয়াটা স্বাভাবিক। কিন্তু ট্রেড ওয়ার, ট্যারিফ, ব্রেক্সিট এর মত এতগুলি ইস্য। তার উপর আবার সেন্ট্রাল ব্যাংকগুলি গোল্ডের রিজার্ভ বাড়াচ্ছে। এতে করে এই সেপ্টেম্বরে এই থিওরি গোল্ডে কাজ নাও করতে পারে।

যখনই পলিটিক্যাল কোন নীগটিভ থাকবে উচিত হবে তখনই গোল্ড বাই মোডে থাকা। আর নরমালি ১৪৭২ ব্রেক আউট না হলে গোল্ড পরবে না, আমার ধারনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here